ফ্লোটিং পয়েন্ট রিপ্রেজেন্টেশন

https://bit.ly/2LqhlSr

Advertisements

ক্রস প্ল্যাটফর্ম ডেস্কটপ অ্যাপ বানিয়ে ফেলুন ৫ মিনিটে — ফান প্রোজেক্ট

জাভাস্ক্রিপ্ট দিয়ে কি কি করা যায় লিস্ট করলে হয়তো শেষ করা যাবে না। কিন্তু আশ্চর্য্য হলেও সত্যি জাভাস্ক্রিপ্ট দিয়ে অনেক সহজেই আপনি জাস্ট ইলেকট্রন ইউজ করে ক্রস প্ল্যাটফর্ম ডেস্কটপ অ্যাপ বানিয়ে ফেলতে পারবেন। তবে এটা শুরু করার আগে বলে নেই, আমি ইলেকট্রন নিয়ে ডিটেইলস জানিনা। তাই আমার এই অ্যাপ কতটুকু অপ্টিমাইজড হবে, পারফর্মেন্স কেমন হবে বা পিছনের অনেক কিছুই আমি জানিনা। জাস্ট ইন্সপায়ারেশন বা ছোটোখাটো ইমার্জেন্সি কাজ সারতে আপাতত এইটুকুই ফলো করেই কাজ করতে পারবেন। এর জন্যে আপনাকে অবশ্যই নোড জেএস, ই এস ৬(খুব বেশী দরকার নাই) এবং এনপিএম প্যাকেজ ম্যানেজারের সাথে পরিচিত থাকতে হবে। এবং আপনার কম্পিউটারে নোড ও এনপিএম ইন্সটল থাকতে হবে।

আরও পড়ুন এখানে

টুরিং টেস্ট: কম্পিউটার কি কখনো পারবে বুদ্ধিমত্তায় মানুষের সমকক্ষ হতে!!!

Inside Out Thoughts

অনেক আগে থেকেই মানুষের মনে কৌতুহল ছিল, কোন যন্ত্র কি কখনো মানুষের মত করে চিন্তা করতে পারবে? “চিন্তা করা” আসলে কি?? চিন্তা করে প্রাপ্ত ফলাফলের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেয়াটাই বা কী? অনেক আগে থেকেই বিজ্ঞানী ও দার্শনিকরা এসব বিষয় নিয়ে মাথা ঘামিয়ে আসছিল।

মানুষ ও যন্ত্র কি কখনও একই ভাবে চিন্তা করতে পারবে?? মানুষ ও যন্ত্র কি কখনও একই ভাবে চিন্তা করতে পারবে??

১৬৩৭ সালে রেনে ডে কার্তে তাঁর প্রকাশিত Discourse on the Method –এ মানুষ ও যন্ত্রের পার্থক্য করার পরীক্ষা পদ্ধতি সম্পর্কে ধারণা দিয়েছিলেন। তিনি সেখানে এই পদ্ধতি সম্পর্কে যা বলেছিলেন তা অনেকটা এরকম-

মানুষহয়তোএমনকোনঘুর্ণনযন্ত্র (automata) তৈরীকরতেপারবেযাকিনাশব্দউচ্চারণকরতেপারবে, এরহয়তোকিছুদৈহিকবৈশিষ্ট্যথাকবেযাদ্বারাসেটিনির্ণয়করতেপারবেতাকেকিবলাহচ্ছে, এরঅন্যএকটিঅংশহয়তোবলতেপারবেতাকেআঘাতকরাহচ্ছেকিনা; কিন্তুবিভিন্নতথ্যেরউপরনির্ভরকরেভিন্নভিন্নসিদ্ধান্তেআসাএটিরপক্ষেকখনোইসম্ভবহবেনা,

View original post 2,209 more words

Machine Learning সম্পর্কিত প্রধান ভুল ধারণাগুলো…

Inside Out Thoughts

১. আমরা খুব দ্রুতই মানুষের সমান বুদ্ধিমত্তা সম্পন্ন কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা দেখতে পাবো।

ভুল!

এটা ঠিক যে আমরা মানুষের চেয়ে নির্ভূলভাবে কিছু নির্দিষ্ট কাজ করতে পারে এমন অনেক কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা দেখতে পাচ্ছি। আমরা এদের সেবাও নিচ্ছি, কেননা যন্ত্রের গণনার ক্ষমতা মানুষ থেকে ঢের বেশী। কিন্তু কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার মূল লক্ষ্য, অর্থ্যাৎ General Al থেকে আমরা এখনো যোজন যোজন দূরে। ইমেজ কিংবা অবজেক্ট ডিটেক্টশনে এখনকার কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাগুলো বেশ পারদর্শী হলেও Natural Language Processing-য়ে এর অগ্রগতি এখনো বাচ্চাদের লেভেলের।

২. Deep Learning Neural Network Model খুব ভালো কাজ করে, তার কারণ হচ্ছে এটি মানুষ মস্তিষ্কের অনুকরণে তৈরী তাই এই মডেল মানব শিখন পদ্ধতির প্রতিকল্প তৈরী করে।

ভুল!!

DEEP LEARNING

বাস্তবে Deep Learning Neural Network Model ইদানিং বেশ ভালো কাজ করছে কারণ–

ক. আমাদের এখন আগের যেকোন সময়ের চেয়ে দ্রুত গতি সম্পন্ন কম্পিউটার আছে।
খ. আমাদের এখন আগের যেকোন সময়ের চেয়ে যন্ত্রের প্রশিক্ষণের জন্য বেশী ডেটা আছে।

৩. Machine Leaning বর্তমান সময়ের নতুন আবিষ্কার।

ভুল!!!

যদিও Machine…

View original post 50 more words

প্রিজমাঃ আর্টিফিসিয়াল ই ন্টেলিজেন্স ও নিউরাল নেটওয়া র্কের সফল প্রয়োগ

প্রিয়তমা স্ত্রী শখ করলেন মোনালিসার মত করে নিজের একটা ছবি আঁকাবেন। লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চি যেভাবে পরম মমতায় মোনালিসাকে এঁকেছিলেন সেভাবে আঁকা তার একটা ছবি চাই। আপনি বসে গেলেন তুলি আর কাগজ নিয়ে।
বিস্তারিত – http://bit.ly/2hEXBun

ব্লকচেইন ও ক্রিপ্টোকারেন্সি

চৌধুরী সাহেব একজন ধনকুবের। ছোটবেলা থেকে ওনার দুষ্প্রাপ্য চিত্রকর্মের প্রতি বিশেষ আগ্রহ আছে। নিজের এত বছরে সংগ্রহ করা চিত্রকর্ম নিয়ে একটা ছোট মিউজিয়ামের মত আছে ওনার। এসব সমস্যা হল, এসব জিনিস সংগ্রহ করা এবং নিজের সংগ্রহে রাখা দুইটারই ঝামেলা অনেক। কারন এসবের উপর নানা ধরনের লোকজনের নজর থাকে, অনেক সময় এগুলো নিয়ে বড় ধরনের সংঘবদ্ধ অপরাধ কিংবা দুর্ঘটনা ঘটে। চৌধুরী সাহেব বৃদ্ধ বয়সে এসে কোন প্রকার ঝামেলায় যেতে চান না। তাই বেশ কিছুদিন ধরে তিনি ভাবছিলেন, এমন কোন উপায় কি আছে যেটা দিয়ে তার সংগ্রহের সকল আর্টগুলো এমনভাবে সংরক্ষণ করা যায় যেন… বিস্তারিত পড়ুন এখানে..

https://www.iayon.com/blockchain-bitcoin/

জ্যাঙ্গো এবং ডকার (পর্ব ১)

rahmansafwan

জ্যাঙ্গো নিয়ে বাংলায় অনেক টিউটোরিয়াল আছে, কিন্তু ডকার নিয়ে বাংলায় গুগল এ সার্চ করেও আমি কোন টিউটোরিয়াল পাইনি! তাই চিন্তা করলাম ডকার আর জ্যাঙ্গ‌ো নিয়ে বাংলায় কিছু লেখা উচিত। তো সম্প্রতি মোজিলা ডেভলপার নেটওয়ার্ক এর প্ল্যাটফরম কুমা ডকারাইজ করতে যেয়ে ডকার নিয়ে আমার সামান্য অভিজ্ঞতা হয়। সেই অভিজ্ঞতার আলকেই আমি আসলে এই ব্লগ লিখব।

ডকার কিজন্য ব্যাবহার করা উচিত – ধরুন, একটি সাধারন জ্যাঙ্গো অ্যাপলিকেশন সেটাপ করতে আপনার কি কি করতে হতে পারে? প্রথমে আপনাকে প্রয়োজনীয় সিস্টেম লাইব্রেরি ইন্সটল করতে হবে, এরপর পাইথন প্যাকেজ গুলো ইন্সটল করতে হবে, এরপর ডাটাবেজ সেটাপ করতে হবে, এরপর হয়ত আপনি ওয়েব সার্ভার চালু করে সেটি ব্রাউজার দিয়ে এক্সেস করতে পারবেন। আপনি যদি একা ডেভলপার হন, আর প্রজেক্ট যদি সখের প্রজেক্ট হয়, তাহলে ডকার আপনার জন্য সেরকম সুবিধার নয়। কিন্তু ধরুন আপনার টিম এ ১০ জন ডেভলপার আছে, একেক জনের একেক মেশিন, আলাদা আলাদা সিস্টেমে আলাদা আলাদা সিস্টেম লাইব্রেরি। আবার আপনার সার্ভার এর সিস্টেমও আলাদা!…

View original post 681 more words